এই গরমেও নিজেকে রাখুন ফ্রেশ এবং সুরভিত

গরম তো পড়েই গেছে। আর এই গরমের রোদের প্রখরতার প্রভাব পড়ছে আমাদের উপর। তাই তো গরমের সময়ে নিজেকে ফ্রেশ রাখাটা অনেক বেশী কঠিন হয়ে পড়ে। প্রচন্ড গরমে হওয়া ঘাম থেকে শরীরের দূর্গন্ধের কারণেও নিজের কাছে অনেক বেশী অস্বস্তি লাগে। আশেপাশের লোকজনের কথা আর নাই বা বললাম।

চলুন জেনে নেই কিছু টিপস। কিভাবে এই প্রচন্ড গরমেও সারাদিন ধরে নিজেকে ফ্রেশ এবং সুরভিত রাখতে পারবেন।

১. পারফিউম-এর কথা নতুন করে বলার কিছুই নাই। এই গরমের সময়ে পারফিউমের জুড়ি নেই। বাইরে গেলে হ্যান্ড ব্যাগে ছোট পারফিউম নিয়ে নিতে পারেন। এতে যখন প্রয়োজন পড়বে তখনই ব্যবহার করতে পারবেন।

২. পারফিউম অনেক সময়ই লং-লাস্টিং হয় না। তাই পারফিউমকে লং-লাস্টিং করতে, যে সকল স্থানে পারফিউম ব্যবহার করবেন,  সেখানে একটু ভ্যাসলিন মেখে নিয়ে তার উপরে পারফিউম লাগান। এতে পারফিউমের স্মেল লং-লাস্টিং হয়। এছাড়া ময়শ্চারাইজার লাগানোর পরে পারফিউম ব্যবহার করলেও সেইম ইফেক্ট পাওয়া যাবে।

৩. পারফিউমের ব্যাপারে একটি বিষয় অনেকেই জানেন,আবার অনেকেই জানেন না। অনেকেই আছেন, পারফিউম নিয়ে এলোপাথাড়ি স্প্রে করতে থাকেন। তারা মনে করেন, এতে অনেক ভাল স্মেল আসবে এবং অনেকক্ষণ লাস্টিং করবে। আসলে ব্যাপারটা কিন্তু একদম ই তা নয়। তাই যেটা করবেন,

৪. পারফিউম নিয়ে আপনার হাতের কনুই, কব্জির পালস পয়েন্ট এবং কানের পেছনের দিকে দুই পাশে স্প্রে করে নিবেন। কারণ, এই জায়গাগুলো পাতলা এবং ওয়ার্ম হয়, যা পারফিউমের স্মেল ধরে রাখে।

 

৫. পারফিউম ব্যবহারে আর একটি কথা না বললেই নয়। তা হলো, ঘামের দূর্গন্ধ বেশী বলে খুব কড়া স্মেলের । পারফিউম ব্যবহার করতে যাবেন না যেন। এতে আপনার নিজের কাছেও ভালো ফিল হবে না। আর আশেপাশের লোকজনও বিরক্ত হবে।

৬. সবসময় হালকা মিষ্টি ফ্লোরাল/ফ্রুটি স্মেলের পারফিউম /বডি স্প্রে / বডি মিস্ট ব্যবহার করতে চেষ্টা করুন। এতে আপনার নিজের কাছেও ফ্রেশ লাগবে।

৭. ব্যাগে হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখুন। অনেক হ্যান্ড স্যানিটাইজারেই সুন্দর স্মেল থাকে। এগুলো আপনাকে জীবাণুমুক্ত রাখবে এবং সুন্দর স্মেলও দিবে।

৮. তাছাড়া নিজেই তৈরী করে নিতে পারেন ডিওডোরেন্ট। এজন্যে-

একটি ছোট কৌটায় ২ টেবিল চামচ নারিকেল তেল, ১ টেবিল চামচ কর্ন স্টার্চ এবং ১ টেবিল চামচ বেকিং সোডা নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। ব্যস, আপনার ডিওডোরেন্ট ব্যবহারের জন্য রেডি। অল্প একটু নিয়ে আপনার আন্ডারআর্মস-এ ব্যবহার করুন। এটা আপনার আন্ডারআর্মের ঘাম রোধ করবে এবং দূর্গন্ধও দূর করবে। এটি আপনি কিছুদিন সংরক্ষণ করেও রাখতে পারবেন।

৯. একটি স্প্রে বোতলে রাবিং এলকোহল ভরে নিন। এই স্প্রে বোতলটি আপনার সাথে রাখুন সবসময়। যখনই মনে হবে আপনার আন্ডারআর্মস থেকে বাজে গন্ধ বের হতে শুরু করেছে, তখনই এটা আন্ডারআর্মস-এ স্প্রে করে নিন। ব্যস, দূর্গন্ধ গায়েব।

তবে, বেকিং সোডা এবং রাবিং এলকোহলের বিষয়ে একটু বলে রাখি। এগুলো স্কিনের জন্যে খুব একটা ভালো নয়। এদের নিয়মিত ব্যবহার স্কিনকে খসখসে করে দেয়। এবং যাদের স্কিন সেনসিটিভ তারা এই পদ্ধতি না অবলম্বন করলেই ভালো। তাই সবচেয়ে ভালো হয়, ট্রাভেল সাইজ পারফিউম ব্যবহার করলে।

১১. ঘামের কারণে শরীরের দূর্গন্ধ ড্রেসে চলে যাওয়া স্বাভাবিক।  তাই ড্রেস ওয়াশ করার পর, একটা ভালো মানের ফেবরিক সফটনার ব্যবহার করুন। এতে আপনার ড্রেসে সুন্দর স্মেল আসবে। যা আপনাকে সারাদিন ফ্রেশ রাখতে সাহায্য করবে।

১২. এক গ্লাস পানিতে ২-৩ টা লেবুর টুকরো নিয়ে সেই পানিটা পান করুন। দিন শুরু করুন এই পানি দিয়ে। এতে সারাদিন আপনার ফ্রেশ ফিল হবে। এছাড়া আপনার রেগুলার ওয়াটার বোতলেও লেবুর টুকরো দিয়ে নিয়ে পারেন।

এই তো জেনে নিলেন, গরমেও ফ্রেশ এবং সুরভিত থাকার কিছু টিপস। আশা করছি, এই গরমে কিছুটা হলেও হেল্প হবে আপনাদের। ভালো থাকুন, সুন্দর ও সতেজ থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *